ফ্রি ভিপিএন

VPN ফ্রি ভিপিএন ডাউনলোড free vpn ভালো ভিপিএন 10 সেরা ভিপিএন

প্রাথমিক আলোচনাঃ

VPN ভিপিএন নাম শুনলেই আমরা বুঝতে পারি এটা দিয়ে কি কাজ করা হয়, কেনো ব্যবহার করা হয়। ভিপিএন এর মাধ্যমে আমরা আমাদের তথ্য গোপন করতে পারি, ব্লক করা সাইটে প্রবেশ করতে পারি। আমরা কখনো ফ্রি ভিপিএন ব্যবহার করি আবার কখনো কিনে ব্যবহার করি। তারমধ্যে অনেক ভিপিএন ভালো অনেক ভিপিএন খারাপ। কোন ভিপিএন আমাদের জন্য ভালো হবে এবং কোন ভিপিএন ব্যবহার করাটা নিরাপদ এবং বিপিএন জিনিস টা কি, এর সুবিধা অসুবিধা কি কি সে সম্পর্কে গবীর ভাবে আলোচনা করা হবে নিচে।  

VPN ফ্রি ভিপিএন ডাউনলোড free vpn বেস্ট ভিপিএন 

আজকের আলোচনায় যা যা জানতে পারবেন তার একটা ধারনা দেওয়া হলোঃ 

  1. ভিপিএন কি what is VPN 
  2. ভিপিএন কাকে বলে 
  3. Why we use VPN আমরা কেনো ভিপিএন ব্যাবহার করি?
  4. ভিপিএন কেনো তৈরি করা হয়?
  5. ভিপিএন (VPN) এর প্রকারভেদ
  6. কী কী কাজে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়?
  7. VPN এর সুবিধা
  8. VPN এর অসুবিধা
  9. Is the vpn safe?ভিপিএন কি নিরাপদ?
  10. ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ২০২২ free VPN 2022 তালিকা 
  11. ফ্রি ভিপিএন ব্যবহার নিয়ম
  12. আমাদের শেষ কথা
  13. আরো পড়ুন 

ভিপিএন কি ভিপিএন কাকে বলে 

VPN এর পূর্ণরুপ হলো: Virtual Private Network.(vpn) ভিপিএন শব্দটি একটি সংক্ষিপ্ত রূপ v=virtual. P=private. N=network. অর্থাৎ (vpn) ভিপিএন এর পূর্ণরূপ হল virtual private network.

Why we use VPN আমরা কেনো ভিপিএন ব্যাবহার করি?

Why we use VPN

ভিপিএন এর পূর্ণরূপ হলো ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক। এটি ইন্টারনেটে বা অনলাইনে আপনার ও অন্য একটি নেটওয়ার্কের বা অন্য একটি দেশের IP Address সাথে সিকিউর কানেকশন তৈরী করে দেয়। অধিকাংশ মানুষ মূলত অঞ্চলভিত্তিক ব্লক করা সাইটগুলোতে প্রবেশ করতে, তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষার্থে এবং সেনসিটিভ কন্টেন্ট ব্রাউজ করার সময় নিজেকে ট্রেস করা থেকে বাঁচাতেই ভিপিএন ব্যবহার করে।

ভিপিএন কেনো তৈরি করা হয়?

ভিপিএন কেনো তৈরি করা হয়

আজকাল ভিপিএন এর ব্যবহার খুবই জনপ্রিয়। কিন্তু অনেকেই আজ যে কারণে ভিপিএন ব্যবহার করে সেই কারণে ভিপিএন এর জন্ম হয়নি বা সে উদ্দেশ্যে ভিপিএন তৈরি করা হয়নি। ভিপিএন তৈরী করা হয়েছিল ব্যবসা ও বাণিজ্যিক প্রাইভেট নেটওয়ার্কগুলোকে নিরাপদে সংযুক্ত করার জন্য। কিন্তু এখন অন্য কারনে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়। অনেকে খারাপ কাজে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়। দেশের আইন না মেনে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়। 

ভিপিএন (VPN) এর প্রকারভেদ

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের জন্য অনেক ধরনের ভিপিএন (VPN) রয়েছে ।প্রত্যেকটি ভিপিএন (VPN) তাদের সিকিউরিটি সুযোগ দিয়ে থাকে ভিপিএন (VPN) গুলোকে ব্যবহারের উপযোগী করার জন্য অনেকগুলো ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়।আপনি যদি সব ক্যাটাগরির সম্পর্কে জানেন তাহলে প্রয়োজন অনুযায়ী ভিপিএন (VPN) ব্যবহার করতে অনেক সুবিধা হবে।

প্রকার গুলো হলোঃ 

  • L2TP/IP SEC
  • Sstp
  • Open Vpn
  • L2TP/IP SEC
  • pptp
  • IKE V2

L2TP

L2TP এর পূর্ণরূপ হল Layer 2 Tunnel Protocal.(L2TP) এনক্রিপশন করে নাL2TP টানেল তৈরি করে সিকিউর এনক্রিপশনের IPSEC জিনিসটা দেখে L2TP সব ট্রাফিক এনক্রিপশন করে টপ এ যোগ করে তাতে অপশন গুলো আগের চেয়ে অনেক স্লো হয়ে যায়

sstp

sstp এর চেয়ে অনেক বেশী কার্যকর এবং : secure socket tunneling protocal এর সংক্ষিপ্ত রূপ হল sstp যেটা উইনডোজ সাপোর্ট করে pptp এর চেয়ে sstp অনেক বেশি কার্যকর এবং নিরাপদ হয়ে থাকে। 

Open Vpn

ওপেন Vpn মানে ওপেনসোর্স মানে বোঝা যায় open-source টেকনোলজিতে ওপেন ভিপিএন ইউজ করা হয় ওপেন ভিপিএন এর কনফিগারেশন সবচেয়ে বেশি উন্নত ওয়েব এর জন্য নিরাপদ হিসেবে এটিকে বিবেচনা করা হয়

pptp

pptp কমন একটি টানেলিং জার সম্পূর্ণ রূপ হল point to point.Windows 95 ব্যবহার করা হয়েছে pptp তাহলে বুঝতে পারছেন এটি অনেক পুরনো পুরনো হওয়ার কারণে হ্যাকার দ্বারা আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা অনেকটাই থেকে থাকে

IKE V2

IKE V2 এর পূর্ণরূপ হল Internet key exchange version 2.১৯৯৮ সালে এটি মাইক্রোসফট সিকিউরিটি পার্টনারশিপের মাধ্যমে তৈরি করে যেটা অথেন্টিকেশন এর জন্য pair (প্রটোকল v.59) সার্টিফিকেট ব্যবহার করে

কী কী কাজে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়?

কী কী কাজে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়

জিও রেস্ট্রিক্টেড কন্টেন্ট ব্রাউজ। ভিডিও ও অডিও স্ট্রিমিং সাইটগুলোতে নির্দিষ্ট দেশের জন্য স্পেসিফিক কন্টেন্টগুলো যে কোন দেশ থেকেই ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (VPN) এর মাধ্যমে ব্রাউজ করতে পারবেন। যেমন ধরুন স্পটিফাই সাইট থেকে বাংলাদেশে বসে আপনি গান শুনতে পারবেন না। কিন্তু চাইলেই ইউএস বা অন্য কোন দেশ যেখানে স্পটিফাই এর সার্ভিস আছে সেসব দেশের আইপিযুক্ত সার্ভারে ভিপিএন দিয়ে কানেক্ট করে আপনিও স্পটিফাই সার্ভিস বাংলাদেশে বসেই ব্যবহার করতে পারবেন। এখন মনে হয় স্পটিফাই আমাদের দেশে ব্যবহার করা যায়। তাছাড়া যে সাইট গুলো আমাদের দেশে নিষিদ্ব সেই সাইট গুলোতে সহজে আপনি প্রবেশ করতে পারি আমরা।

VPN এর সুবিধাঃ

VPN এর সুবিধা

‘VPN’ এর মাধ্যমে আমরা যে কোনো দেশের সার্ভার ব্যবহার করে ঐ সার্ভার এর IP Address নিয়ে ইন্টারনেটে প্রবেশ করতে পারি। এতে আমরা আমাদের সঠিক তথ্য লুকিয়ে রাখতে পারি। এবং আমাদের দেশের অনলাইনে যেটা নিষিদ্ব সেটা আপনি অন্য দেশের IP Address ব্যবহার করে সেটা করতে পারবেন।(vpn) ভিপিএন আপনার ব্যবহৃত ইন্টারনেট এবং অন্য একটি নেটওয়ার্কের মাধ্যমে নিরাপত্তা কানেকশন তৈরি করে দেয়। VPN ব্যবহার এর ফলে যে কোনো block site গুলোতে সহজেই access বা প্রবেশ করা যায় কারণ VPN সার্ভার সরাসরি ঐ সাইট গুলোতে প্রবেশের জন্য টানেল অথবা পথ তৈরী করে দেয়।তাছাড়া, VPN ব্যবহার করার ফলে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষা বা ব্যক্তিগত তথ্য রক্ষাও করা যায়।

READ: How to Make Money Online for Beginners: 10 Proven Ways

নিজের প্রকৃত লোকেশন গোপন করতে

বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ট্র্যাকিং থেকে বাঁচতে আপনি যদি আপনার প্রকৃত লোকেশন গোপন রেখে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে চান তাহলে ভিপিএন আপনাকে সেই সুবিধা দিবে। এছাড়া আপনি হয়তো জানেন যে চীনে সরকারীভাবে অনেক সাইটই বন্ধ করে রাখা আছে (এমনকি ফেসবুকও)। চায়নিজরা ভিপিএন ব্যবহার করেই প্রয়োজন পড়লে সেসব সাইট ব্রাউজ করে পুরো ইন্টারনেট এর সাথে সংযুক্ত থাকে।

VPN এর অসুবিধাঃ

VPN এর অসুবিধা

আপনি যদি কোনো একটি একাউন্ট (এটা হতে পারে সোশাল মিডিয়া বা যে কোনো মার্কেটপ্লেস এ VPN ছাড়া একাউন্ট টি ক্রিয়েট করে থাকেন অথবা VPN দিয়ে একাউন্ট ক্রিয়েট করে VPN ছাড়া একাউন্ট এ বার বার লগ ইন করেন তাহলে ঐ প্রতিষ্ঠান আপনাকে (ইউজার) স্প্যাম সন্দেহে একাউন্টটি ডিএ্যাক্টিভ্যাট করে দেওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আরো অসুবিধা হলো আপনি যদি ফ্রি ভিপিএন ব্যাবহার করেন তাহলে অনেক এড আসবে এতে আপনি অনেক বিরক্ত হবেন।

তাছাড়া, কোনো একটি সাইট যদি রাষ্ট্রিয় ভাবে অফ থাকে বা কোনো অবৈধ সাইটে VPN দিয়ে প্রবেশ করা নিরাপত্তা আইন কে ভঙ্গ করে যা শাস্তি যোগ্য অপরাধ। এ জন্য যদি দেশে কোনো আইন করে থাকে তাহলে সে আইন অনুযায়ী আপনি শাস্তি পাবেন।

Is VPN safe For Use ভিপিএন কি নিরাপদ?

Is VPN safe For Use

ভার্চুয়াল জগতে নিরাপত্তার ব্যাপারটি দুর্বোধ্য। কোনো কিছুই পুরোপুরি নিরাপদ নয়। কিন্তু বাজারের জনপ্রিয় VPN সেবাদাতাগুলোর প্রতি অনেকেই আস্থা রাখছেন। আবার নিজের তৈরি ভিপিএন নেটওয়ার্ক হলে তাও মন্দ হয় না- যদিও অনেক ক্ষেত্রে তা “খাজনার চেয়ে বাজনা বেশি” বলে মনে হতে পারে। অসাধু বা কম্প্রোমাইজড VPN নেটওয়ার্ক থেকে আপনার ডেটা বেহাত হওয়ার ঝুঁকি যে একদম নেই তা না। অনেক কোম্পানি ফ্রি আনলিমিটেড VPN দেয়ার কথা বলে, যা বুঝেশুনে না এগোলে ফাঁদ হিসেবে দেখা দিতে পারে। সুতরাং একটু ঘাঁটাঘাঁটি করতে হবে।

ভিপিএন এর পূর্ণরূপ হল ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক। আমরা সবাই সুরক্ষার জন্য ভিপিএন ব্যবহার করে থাকি। এছাড়াও এই ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক আপনার সকল গোপনীয়তা রক্ষা করে থাকে। আপনি যদি আপনার সুরক্ষা ও গোপনীয়তা রক্ষা করতে চান। অবশ্যই ভিপিএন ব্যবহার করতে পারেন। আমরা বর্তমানে সবাই অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে থাকি। তাই আজকের এই টিউটোরিয়ালটি ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন কোনটি। ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ২০২২ এর জন্য কোনগুলো, সবচেয়ে ভালো ভিপিএন কোন গুলো তা নিয়ে আজকের আলোচনা করব।

ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ২০২২ । এখন আমরা নতুন বছরে পদার্পন করেছি। ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ফোনের জন্য, কোন ভিপিএন গুলো আমরা ফ্রিতে সারা বছর ব্যবহার করতে পারব। সেই সম্পর্কে আজকে বিস্তারিত আলোচনা। অবশ্যই নিচের আর্টিকেলটি সুন্দরভাবে পড়বেন।

জানুনঃছেলেদের লিঙ্গ বড় করা একেবারে সম্ভব || পরীক্ষিত পদ্ধতি

ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ২০২২ free VPN 2022 for android

  1. Proton VPN
  2. Express VPN
  3. Turbo VPN
  4. Super VPN
  5. Speed VPN
  6. Thunder VPN
  7. Better net VPN
  8. TunnelBear VPN
  9. Nord VPN
  10. Hotspot Shield VPN Proton VPN

1. Proton VPN

এন্ড্রয়েড ফোনের জন্য সব থেকে নিরাপদ ভিপিএন Proton VPN। এই VPN আপনি সারা বছর বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন। বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিপিএন এর মধ্যে Proton VPN এক নম্বরে আছে। এই ভিপিএন আপনার গোপনীয়তা সম্পূর্ণরূপে রক্ষা করে থাকে। আপনি যদি এই ভিপিএন টি ফ্রিতে ব্যবহার করতে চান, তাহলে নির্দিষ্ট কিছু দেশেতেই ঢুকতে পারবেন। আর আপনি যদি মাত্র কয়েক ডলার দিয়ে এই ভিপিএন প্রিমিয়াম ভার্শন  কিনেন বা buy করেন, ৬০ দেশে আপনি যে কোন মুহূর্তে ব্রাউজ করতে পারবেন।

Proton VPN সুবিধা Proton VPN এর বৈশিষ্ট্য:-
  • আপনার আইপি অ্যাড্রেস লুকিয়ে রাখে।
  • আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখে।
  • ব্লক করা সাইট এর সহজে ব্লাউজ করা করা।
  •  আপনার ওয়াইফাই কে সুরক্ষিত করে।

2.Express VPN

Express VPN এন্ড্রয়েড ফোনের জন্য দ্রুতগামী ভিপিএন হলো Express VPN। বর্তমানে এইভাবে VPN ব্যবহার করে ৫০০ মিলিয়ন মানুষের বেশি। এই ভিপিএন এর অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো আপনার সকল প্রাইভেট এক্সচেঞ্জ অন্যের কাছে যেতে দেয় না। আপনার সকল গোপনীয়তাঃ আপনার আইপি অ্যাড্রেস এর মধ্যেই রেখে দেয়।

Express VPN এর সুবিধা ও বৈশিষ্ট্য: 
  • যেকোনো ধরনের ব্লক করা সাইট এ browsing করতে পারবেন।
  • আপনার অনলাইনের যাবতীয় কাজের অ্যাক্সেস সুরক্ষা করে।
  • যেকোনো ধরনের ট্রাক সার্ভিস থেকে মুক্ত।

Turbo VPN

Turbo VPN এক্সপ্রেস ভিপিএন এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে Turbo VPN এগিয়ে সবার উপরে। আপনি এক নিমিষের মধ্যে হোমস্ক্রিন থেকে এই ভিপিএন কানেক্ট করতে পারবেন। অনেক ভিপিএন কানেক্ট করতে সাইন আপ করতে হয়, কিন্তু এই ভিপিএন কানেক্ট করতে কোন সাইন আপ করতে হয় না। এর জন্য আপনি প্লে স্টোর থেকে প্রথমে Turbo VPN ডাউনলোড করে নেন। এই ভিপিএন টি সবচেয়ে দ্রুতগামী ও সবথেকে হালকা হয়। আপনি যেকোন মোবাইল নেটওয়ার্ক ওয়াইফাই দিয়ে এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

আমি ব্যক্তিগত ভাবে মোবাইল ডিভাইসে ব্যবহার করি turbo vpn কে। কারণ কানেক্ট করা সহজ, ফ্রিতে আমার জনপ্রিয় দেশে কানেক্ট এর সুযোগ, আনলিমিটেড ডাটা ইউজেসের সুবিধা আর সব থেকে বড় কথা হচ্ছে এটি কখনোই স্পিডকে স্লো করে না সবসময় ভালো স্পিড দেয়। আর কোনো প্রকারের আইডি/ লগইনের ঝামেলা নেই এখানে। আর এখানেও ফ্রি ভার্সন এর পাশাপাশি রয়েছে প্রিমিয়াম সার্ভিস কিনে নেওয়ার সুযোগ। এটা মূলত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য বেশি জনপ্রিয় আর ব্যবহৃত হলেও গুগলে turbo vpn for pc লিখে সার্চ দিলে এর পিসি সংস্করণও আপনি পেয়ে যাবেন। 

Turbo VPN সুবিধা ও বৈশিষ্ট্য: 
  • অনেক দ্রুতগামী ও সহজ অ্যাপ্লিকেশন।
  • ভিপিএন সার্ভার এর অবস্থা ১৬০ দেশে।
  • চেক আউট করার সময় আপনার সুরক্ষা নিশ্চিত করে।
  • Turbo VPN মাসিক প্যাক ২$ ।
  • প্রথম তিন মাস ফ্রি তে ব্যবহার করতে পারবেন।

Super VPN

Super VPN  বর্তমানে সবথেকে শক্তিশালী ভিপিএন এর মধ্যে Super VPN প্রথম স্থানে। এছাড়াও আপনি এই ভিপিএন ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন। Free gaming VPN for Android জন্য আপনি Super VPN ব্যবহার করতে পারেন। অনেকেই গেম খেলেন কিন্তু বিভিন্ন দেশের গেম খেলা অ্যালাউ না, চাইলে আপনি সহজেই Super VPN ব্যবহার করে নিমিষেই গেম খেলতে পারেন।।

এই ভিপিএন নতুন কিংবা আগে কখনো এই ভিপিএন এর নাম শুনেননি এমন লোকের সংখ্যাই বেশি । তবে ডাউনলোডের কথা বিবেচনা করলে আমরা দেখতে পারবো যে এটা বেশ এগিয়ে রয়েছে। এখন পর্যন্ত গুগল প্লে স্টোর থেকে এই অ্যাপটি প্রায় ১০০ মিলিয়নের বেশিবার ডাউনলোড হয়েছে। হ্যাঁ! এটা অ্যান্ড্রয়েডের জন্যে সেরা একটি ভিপিএন, এর কোনো পিসি  সংস্করণ নেই। ভিপিএনটি ফাস্ট এবং ফ্রি! তবে বিশ্বাসযোগ্যতাই হচ্ছে ফ্রি ভিপিএন এর ক্ষেত্রে মূল ফ্যাক্টর! এতে রয়েছে আনলিমিটেড ফ্রি ব্যান্ডউইথ, রয়েছে কোনো প্রকারের রেজিস্ট্রেশনের ঝামেলা ছাড়াই on-the-go হিসেবে ব্যবহারের সুযোগ। কিন্তু এর Anonymouse ডেভেলপার, Worthless প্রাইভেসি পলিসি, অ্যাপ চালাতে সেন্সিটিভ পারমিশন আর বিজ্ঞাপনের জন্য একে অনেকেই ব্যবহার করতে দ্বিধাবোধ করেন।

Super VPN সুবিধা ও মূল বৈশিষ্ট্য:- 
  • অনেক শক্তিশালী ও নির্ভরযোগ্য।
  •  আপনার তথ্যকে সুরক্ষিত রাখা।
  • সারা বছর ফ্রি সার্ভিস দেয়।
  •  50 টিরও বেশি সার্ভার যুক্ত করে পারবেন।
  • এছাড়াও যদি মাসিক প্যাক কিনেন তাহলে পৃথিবীর যেকোন সার্ভে ঢুকতে পারবেন।

Speed VPN

Speed VPN আপনি যদি কোথাও ঘুরতে যান, সেখানে যদি মোবাইল নেটওয়ার্ক খুবই দুর্বল থাকে। তখন আপনাকে সাহায্য করবে Speed VPN। এই ভিপিএন এর সিকিউরিটি অনেক কঠিন। যে কোন সার্ভারে সহজেই প্রবেশ করতে পারবেন ‌। আরও যদি অন্যান্য ফিচার এর কথা বলি,Speed VPN আপনি সারাজীবন একদম বিনামূল্যে ব্যবহার করতে ‌ও সার্ভিস নিতে পারবে।

Speed VPN প্রধান বৈশিষ্ট্য:-
  • অ্যান্ড্রয়েড ফোন, ল্যাপটপ/পিসি যে কোন ডিভাইসে ব্যবহার করতে পারবেন।
  • 50 টিরও বেশি দেশে প্রবেশ করবেন।
  • প্রায় 5000 সার্ভারে ঢুকতে পারবেন।
  • সর্বোচ্চ এনালাইসিস করে আপনার ডাটা দিয়ে সুরক্ষিত রাখে।

পড়ুনঃ স্কিন সাইন ক্রিম এর ব্যবহার USES OF SKINSHINE CREAM

ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন পাবজির জন্য সেরা ভিপিএন 

ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন,ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন পাবজির জন্য সেরা ভিপিএন।  বর্তমানে আমরা সবাই জানি বাংলাদেশ থেকে ফ্রী ফায়ার,পাবজি গেম ব্যান করা হয়েছে। মূলত এই গেমটা সকলের নেশায় পরিণত হয়ে গেছে ‌। তাই অনেকেই জানতে চাই ভাইয়া ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন কোনগুলো । তারই পরিপ্রেক্ষিতে আমি নিয়ে এলাম আপনাদের সঙ্গে সেরা বেস্ট ফ্রি ভিপিএন। এই ব্যাপারগুলো ব্যবহার করে আপনি সহজেই ফ্রী ফায়ার গেম খেলতে পারবে।

ফ্রি ফায়ার, পাবজির জন্য সেরা ভিপিএন Free Fire VPN:
  • Hide me VPN
  • Windscribe VPN
  • TunnelBear VPN
  • Speedify VPN
  • PrivadoVPN

ফ্রি ভিপিএন ব্যবহার নিয়ম

ফ্রি ভিপিএন ব্যবহার নিয়ম

আমরা মূলত যে সার্ভারে আমাদের দেশ থেকে যাওয়া যায় না, সেই সার্ভার গুলো ঢুকতেই ভিপিএন ব্যবহার করে থাকি। এটা ডিজিটাল অপরাধের অন্তর্ভুক্ত। তাই ফ্রি ভিপিএন ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমাদের কিছু সর্তকতা অবলম্বন করতে হয়। এ সতর্কতার মধ্যে হল, কোন দেশের প্রশাসনিক সার্ভারে নেওয়া যাওয়া। কোন দেশের অর্থনৈতিক কটুক্তি না করা। এসব ক্ষেত্রে আমাদের প্রত্যেককে সতর্ক থাকতে হবে। আপনি যদি ফ্রি ফায়ার গেম খেলতে ভিপিএন ব্যবহার করেন। সে ক্ষেত্রে তেমন কোনো সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে না।

আমাদের শেষ কথা:

আজকের টিউটোরিয়ালটি এখানেই শেষ করছি। আশাকরি আপনার সকল প্রশ্নের উত্তর জানতে পেরেছেন। ফ্রি ভিপিএন এন্ড্রয়েড ২০২২ এর আলোচনা কেমন লেগেছে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। অনেকেই প্রশ্ন ছিল ফ্রি ফায়ারের জন্য সেরা ভিপিএন  কোনগুলো তা নিয়ে আলোচনা করেছে। কিন্তু অবশ্যই আপনি ভিপিএন গুলো ডিজিটাল অপরাধের ব্যবহার করবেন না। সেক্ষেত্রে আপনার দণ্ডনীয় শাস্তি হতে পারে। আপনি যেকোন ব্লক করা ওয়েবসাইটেও গেম খেলার ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু কোন হ্যাকিং ও অন্যান্য খারাপ সাইটে ব্যবহার করবে সেটার দায়ী কর্তৃপক্ষ নয়।

আরো পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.