টাকা ইনকাম করার অ্যাপ

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ।সবচেয়ে সেরা টাকা আয় করার apps 2022

প্রাথমিক আলোচনা টাকা ইনকাম করা অ্যাপ সম্পর্কে

শুধু টাকা ইনকাম করার অ্যাপ না বর্তমানে এই ডিজিটাল মার্কেটিং এঁর যুগে টাকা ইনকাম করার অনেক উপায় রয়েছে অনলাইনে। আপনি আপনার ঘরে বসেই সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন যদি আপনার কাছে একটি মোবাইল অথবা ল্যাপটব থাকে সাথে ইন্টারনেট সংযোগ থাকে।অনেক গুলো মাধ্যমের মধ্যে একটি মাধ্যম হলো Android  mobile apps.

মোবাইল অ্যাপ এর মাধ্যমে আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন যদি আপনি সঠিক মাধ্যম গুলো জানেন বা সঠিক উপায় গুলো। আর সেই সঠিক উপায় গুলো নিয়েই আজকে আলোচনা করবো।

  • প্রথমত আপনি যদি অ্যাপ নিজে তৈরি করেন।
  • দ্বিতীয়ত যদি ইনকাম করা যায় এমন অ্যাপ দিয়ে করেন।

প্রথমত আপনি  যদি অ্যাপ তৈরি করেন তৈরি করেন অথবা কারো কাছ থেকে কিনেন, কিনার পর আপনি সেটি play stor এ রেখে admob এর সাথে কানেক্ট করে এড বসিয়ে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।এভাবে অনেক মানুষ টাকা ইনকাম করতে পারতেছে।একটা সাধারন আপস থাকলেও আপনি মাসে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

income apps
টাকা ইনকাম করার আপ্স

আপনাদের যদি ভিডিও অ্যাপ তৈরি করে টাকা ইনকাম করার ইচ্ছে থাকে তাহলে [email protected]  এ ইমাইলে যোগাযোগ করুন অনেক কম টাকায় ভালো অ্যাপ পাবেন।

দ্বিতীয়ত হলো অন্যের তৈরি করা আপস আ আপনি কাজ করে বিভিন্ন টাস্ক কমপ্লিট করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনাকে সে আপস গুলো ডাউনলোড করতে হবে এবং কাজ করতে হবে।  যেমন আয় করার apps গুলো হলোঃ

ইত্যাদি এমন আরো অনেক অনেক আপস আছে এবং সেগুলো নিছে উল্লেখ করবো এবং কিভাবে আগুলো থেকে টাকা ইনকাম করবেন সে কথাও বলে দিয়েছি নিছের দিকে।আর আরো অনেক অ্যাপ নিয়ে বিস্তারিত নিচে আলোচনা করা হবে। 

টাকা আয় করার apps
টাকা আয় করার apps

শুধু কিন্তু আপস এ না, অনেক ওয়েবসাইট থেকেও টাকা ইনকাম করা যায় এবং টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলো জানুন। আর আপস দিয়ে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন কিন্তু ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন না। তবে যদি আপ ডেভেলপার হন তাহলে আপনার একটা ক্যারিয়ার হবে। তখন নিজে আপস তৈরি করবেন, ফ্রিল্যান্সিং করবেন,চাকরি করবনে এমনকি ব্যবসা করতে পারবেন।

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ গুলো কি কি 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ:- অনলাইনে টাকা আয় করার কথা ভাবছেন। অনলাইনে ইনকামের অনেকগুলো সেক্টর রয়েছে। তার মধ্যে টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ সবথেকে সহজ। আপনাদের সামনে টাকা ইনকাম করার যে অ্যাপ গুলো আলোচনা করব, সবগুলো অ্যাপ পেমেন্ট করে থাকে। 

taka income apps
taka income apps

 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশে 

আমাদের দেশে অনেকগুলো টাকা ইনকাম করার অ্যাপ রয়েছে। কিন্তু সব অ্যাপ পেমেন্ট করে না। তাই যে অ্যাপগুলো পেমেন্ট করে থাকে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করছি।আলোছনার পূর্বে একটি কথা, আগুলো সব প্লে স্টোরে পাবেন এবং জিমেইল দিয়ে প্লে স্টোরে একাউন্ট খুলে রাখেবন।একাউন্ট খুলতে না পারলে জিমেইল খুলার নিয়মটাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ:- 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ Meesho app

mesho apps

বর্তমানে অনলাইন শপিং প্লাটফর্ম গুলো অনেক জনপ্রিয়। অনলাইন শপিং প্লাটফর্ম এর মধ্যে Meesho app আরো বেশি জনপ্রিয়। এই অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসে খুব সহজে টাকা আয় করা যায়। টাকা আয় করার পূর্ব শর্ত Meesho app একটা প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। 

প্রোফাইল তৈরি করার জন্য প্লে স্টোর থেকে Meesho app ইনস্টল করে সাইন আপ করতে হবে। Meesho app থেকে ইনকাম জন্য আপনাকে প্রোডাক্ট সেল করতে হবে। Meesho app আনলিমিটেড প্রোডাক্ট রয়েছে। প্রোডাক্ট এর ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে সেল করতে হবে। সেই সেলের মাধ্যমে আপনার টাকা ইনকাম হবে।

আপনার লিঙ্গ যদি ছোট কিংবা চিকন হয় তাহলে জানুন কিভাবে লিঙ্গ বড়ো করতে হয় এবং লিঙ্গের ব্যায়াম কিভাবে করে

আপনি যত বেশি বিক্রি করবেন, আপনার ইনকাম তত বেশি হবে। এটা কমিশনের মাধ্যমে আপনাকে টাকা দিবে। যতো বিক্রি করবেন ততো টাকা পাবেন।আর এটা হচ্ছে affiliate marketing। আপনি এটার মাধ্যমে অনেক টাকা আয় করার পাশাপাশি অনেক দক্ষতাও অর্জন করতে পারবেন মার্কেটিং সম্পর্কে।  

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ Pocket money

pocket money

Pocket money অনলাইন ইনকাম একটি অ্যাপ। এই অ্যাপের মাধ্যমে মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করা যায়। টাকা ইনকাম করার আগে প্রথমে প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে। অ্যাপটি ইন্সটল করার পর আপনার রিয়েল ইনফরমেশন দিয়ে সাইন আপ করতে হবে। 

সাইন আপ করার আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম ও ঠিকানা ব্যবহার করুন। নিজের জাতীয় পরিচয় না থাকলে বাবা-মার জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার করুন। সাইনআপ সম্পন্ন হওয়ার পর অ্যাপ টা তে লগইন করুন। 

Pocket money তে বিভিন্ন রকম কাজ রয়েছে। বিজ্ঞাপন ও ভিডিও দেখাও এদের মধ্যে অন্যতম। এই কাজগুলো খুবই সহজ। ছোট ছোট বাচ্চারা এই কাজগুলো করতে পারবে। কিন্তু কাজ সঠিক দিক নির্দেশনা অনুযায়ী করতে হবে। কাজ করার পর সর্বনিম্ন পাঁচ ডলার হলে উইথড্র দেওয়া যায়। পেমেন্ট নিয়ে কোন চিন্তা করবেন না। বিকাশ এর মাধ্যমে খুব সহজেই পেমেন্ট পাওয়া যায়। 

Taka Income App আয় করার apps 

Taka Income App

টাকা ইনকাম এবং অনলাইন ইনকাম অ্যাপ বাংলাদেশের একটি প্লে টু উইন ক্যাশ অ্যাপস।

গেম খেলে এই অ্যাপের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়।টাকা ইনকাম অ্যাপসের মাধ্যমে আপনি ভালো একটা এমাউন্ট পাবেন। আপনি এই অ্যপের মাধ্যমে গেম খেলে নগদ পুরুষ্কার অর্জন করতে পারবেন।

আপনি এখনি টাকা ইনকাম অ্যাপসটি ডাউনলোড করে টাকা ইনকাম শুরু করে দেন তবে একটি কথা, এভাবে টাকা ইনকাম করা যায় কিন্তু এটা আপনার একটা ক্যারিয়ার হবে নাহ। এভাবে নিজের সামন্য হাত খরচ হবে কিন্তু পরিবার চলবে নাহ

এগুলোতে সময় না দিয়ে নিজের একটা স্কিল তৈরী করুন। অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট  শিখেন, ডিজিটাল মার্কেটিং শিখেন, ফ্রিল্যান্সিং করেন আরো অন্যন্য বিষয়ে নিজেকে দক্ষ করে তুলেন যাতে মাসে ২০ হাজার কেনো মাসে আরো বেশি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

Earn Talktime 

রেফার বলতে আমরা বুঝি একজনের মাধ্যমে হেল্প নেওয়া। তার নামের মাধ্যমে কোনো উপকৃত হওয়া। ঠিক এই অ্যাপসেও আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন রেফারের মাধ্যমে। এটাকে বলে রেফার করো আর টাকা নাও।

এই অ্যাপ থেকে টাকা আয় করার জন্য মূলত refer & earn এর অপশন রয়েছে। এখানে আপনি নিজের referral link বা code এর মাধ্যমে অন্য ব্যাক্তিদের Earn Talktime app এ যোগ করিয়ে income করতে পারবেন।

আপনি এখানে শপিং করতে পারবেন। শপিং করার মাধ্যমে আপনি ক্যাশব্যাক পাবেন।অন্যকে অ্যপস ডাউনলোড করিয়ে দিলে আপনাকে টাকা দিবে।

wind cash যা দিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন সহজেই 

wind cash
টাকা কামানোর প্রমান

wind cash একটা বিশ্বস্ত অ্যাপস টাকা ইনকাম করার জন্য। আমার দেখা আমার বন্ধুরা এটা থেকে টাকা ইনকাম করেছে।এখানে এড দেখার মাধ্যমে টাকা ইনকাম হয়।

আমার বন্ধু ফুহাদ এবং মাহফুজ,  তারা দুজনে এখানে লগ-ইন করে। তারপর তারা নির্দিষ্ট নিয়মে এড দেখে এবং তাদের একাউন্টে টাকা জমা হয়। তাদের এখানে নিজেদের আলাদা করে খরচ করা লাগে নাহ। 

তারা যে টাকা হয় সেটা উইথড্র দিয়ে নিজেদের বিকাশে, নগদ একাউন্ট নিয়ে আসে। আবার মোবাইল রিসার্চ ও করতে পারে এই অ্যপস থেকে।

Cash Buddy 

cash buddy একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপস। আবার ফেসবুকে মতো নাহ। এটায় কিছু সাধারণ কাজ করে টাকা আয় করা যায়।এটাও একটি টাকা আায় করার apps.

কাজগুলো হলো sharing pics & gifs, installing & registering free android apps, game & website ইত্যাদি।

এখানেও শপিং করতে পারবেন এবং শপিং করে প্রচুর ক্যাশব্যাক cash back পাবেন এই সুযোগ ছাড়াও এখানে রেফারের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। এটা আপনার অন্য কাজের পাশাপাশি রাখলে ভালো হয়।

যখন অবসর তখন এ কাজগুলো করলেন আর আপনার অবসর সময়টাতেও কিছু টাকা আয় করতে পারলেন।

টাকা উঠানো নিয়ে অনেক অ্যাপস এ ঝামেলা থাকে। আপনার টাকাগুলো আপনি এখানে উঠাতে পারবেন কোনো ঝামেলা হবে নাহ আশা করি। এবং আপনাদের ইনকাম করা টাকা গুলো paytm, flipkart cash, amazon এর মাধ্যমে redeem করতে পারবেন।

TaskBucks

টাস্কবাকস অ্যপাসটি অনেক দারুন একটি অ্যাপস।এটির মাধ্যমে অনেকগুলো উপায়ে কাজ করতে পারবেন সাথে মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারবেন যা কল্পনাও করতে পারবেন নাহ।

এখানে কয়েকটি উপায়ে কাজ করা যায় আর উপায়গুলো হলোঃ

কুইজ খেলে quiz 

কুইজ খেলাটা কিন্তু বুদ্ধির এবং মজার। আপনি যতো কুইজ খেলবেন ততো আপনার দক্ষতা বাড়বে আর এখানেতো সাথে টাকাও পাবেন।সুতরাং এখানে আপনি কুইজ খেলে টাকা আয় করতে পারবেন।

গেম খেলে

গেম খেলাটি আমাদের কম বেশি সবারি পছন্দ।এখানে আপনি আপনার অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে গেম ও খেলবেন সাথে টাকাও আয় করবেন। ব্যাপারটা এমন যে খাবারও খেলাম আবার হাদিয়াও ফেলাম।আপনি গেম খেলে সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন এখান থেকে।

টাস্ক সম্পূর্ণ করে

অ্যাপসটির নামি টাস্ক আর এখানে টাস্ক থাকবে না এটা কোনো কথা? এখানে আপনি বিভিন্ন টাস্ক কমপ্লিট করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যতো টাস্ক কমপ্লিট হবে ততো টাকা পাবেন।আরো ভালো বুঝতে পারবেন অ্যাপসটি নামানোর পর।

আর রেফার করো ইনকাম করো এটাতো আছেই। আপনি যতো রেফার করবেন ততো টাকা পাবেন।  

আমার মতে টাকা আয় করার apps গুলোর মধ্যে সব থেকে সেরা app হলো এটা। যার google Play store রেটিং হলো ৪.১। এখানে আয় করা coins গুলো free mobile recharge বা Paytm cash হিসাবে তুলতে পারবেন।

Roz Ghan

অনেকগুলো টাকা আয় করার  অ্যাপস সম্পর্কেই জানলেন কিন্তু এখন যেটা জানবেন সেটা হলো আগুন মানে সেই লেভেলের অ্যাপস। এই অ্যাপসকে বর্তমানে সেরা আর্নিং অ্যাপস বলা হয়ে থাকে।

এই Roz Ghan অ্যাপটিকে best money earning app হিসাবে বলা হয়।অনেকগুলো কারনে এটাকে সেরা বলা হয়ে থাকে তারমধ্যে এটার কয়েকটি কারেন উল্লেখ করলাম।

এটা ঠিক টাইমে পেমেন্ট করে। আপনি অনেক অ্যাপস এ পেমেন পান নাহ।শুধু শুধু কাজ করেন কিন্তু এটা আপনাকে পেমেন্ট করবে।

এটা ব্যবহার করে অনেকে অনেক টাকা ইনকাম করেছে।আপনি এটার রিভিউ অপশনে গেলে দেখবেন সবাই এটার ভালো রিভিউ দিচ্ছে। 

আপনি যখন প্রথম Roz Ghan অ্যাপে Login করবেন তখনি আপনাকে ইন্ডিয়ান ৫০ টাকা দেওয়া হবে।

এটার কাজগুলো হলো আপনি রেফারিং করলে প্রতি রেফারে ১২ টাকা পাবেন।তাছাড়া এই অ্যাপে বিভিন্ন ধরনের instant cash tasks রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়াও app install, pay games, read news, complete survey tasks, walking task, puzzkle task ইত্যাদি কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

Current rewards

টাকা আয়তো সব অ্যাপেই করা যায় কিন্তু বিশ্বাসযোগ্য কয়টা অ্যাপ আছে। তারমধ্য বিশ্বাসযোগ্য একটি অ্যাপস হলো কারেন্ট রিওয়ার্ডস। এটার মাধ্যমে আপনি ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

এখানে আপনি গেম খেলে টাকা আয় করতে পারবেন। এখানে একটা ইন্টারেস্টিং ব্যাপার আছে আর তা হলো এখানে শুধু গেম খেলে নয় আপনারা এই অ্যাপের মাধ্যমে গান শুনেও টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে গান শুনাটা বেশি হারামের মধ্যে পরে যায় যদি আপনি মুসলিম হন। এখানের রেফার করে টাকা কামাও এ অপশন আছে। আর এ অ্যাপের রেটিং হলো ৪.৪।

বিকাশ অ্যাপ

বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং একটি প্রতিষ্ঠান। বিকাশ কে আমরা লেনদেনের জন্য ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে টাকা আয় করা যায়। বিকাশ অ্যাপ থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য, প্রথমে একটি বিকাশ একাউন্ট থাকতে হবে। বিকাশ একাউন্ট বলতে বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট। 

বিকাশ অ্যাপ থেকে ইনকাম এর অন্যতম উপায় হল রেফার। রেফার করার মাধ্যমে বিকাশ অ্যাপ থেকে ইনকাম হবে। আপনাকে প্রথমেই বিকাশ অ্যাপ টা ইন্সটল করতে হবে। এরপর আপনার মোবাইল নাম্বার ও পিন কোড দিয়ে সাইন ইন করতে হবে। 

এখন আপনার সামনে বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার ফিচার চলে আসবে। এরপর আপনার বিকাশ রেফার লিংক কপি করতে হবে। আপনারা যে সকল বন্ধুরা বিকাশ একাউন্ট তৈরি করে নাই। তাদেরকে এই রেফারেল লিংক দিয়ে দিতে হবে। রেফারেল লিংকের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট তৈরি করলে আপনি ৪৬ টাকা রেফার বোনাস পাবেন। 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ

নগদ অ্যাপ

নগদ নতুন মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। নগদ অ্যাপ এর মাধ্যমে ইনকাম হবে আনলিমিটেড। নগদ অ্যাপ এর মাধ্যমে ইনকাম করতে হলে প্রথমে নগদ অ্যাপ ইন্সটল করতে  হবে। নগদ অ্যাপ থেকে ইনকাম এর পূর্ব শর্ত একটা নগদ একাউন্ট থাকতে হবে।  

নগদ অ্যাপ ইন্সটল হওয়ার পর ওপেন করতে হবে। তারপর নগদ অ্যাপের ড্যাশবোর্ড এ রেফারেন্স লিংক নামক অপশনে ক্লিক করতে হবে। তারপর সেই লিংক টা আপনার বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের কাছে শেয়ার করতে হবে। যারা যারা আপনার এই লিংকের মাধ্যমে নগদ একাউন্ট তৈরি করবে, প্রতিটা অ্যাকাউন্ট থেকে ৪০ টাকা করে বোনাস পাবেন। 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ এর মধ্যে নগদ অ্যাপ অন্যতম। আপনি আনলিমিটেড রেফার লিংক শেয়ার করতে পারেন। প্রতিটি শেয়ারের জন্য আপনাকে কমিশন দেয়া হবে। নগদ অ্যাপ থেকে ইনকাম মোবাইল রিচার্জ ও ক্যাশ আউট এর মাধ্যমে উত্তোলন করা যাবে। নগদ অ্যাপ  সম্পর্কে a to z  জানুন>> 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ

Taka income

taka income pro

টাকা ইনকাম বাংলাদেশের নিজস্ব একটি অ্যাপ। টাকা ইনকাম অ্যাপ এর মাধ্যমে ঘরে বসে ইনকাম করুন। এই অ্যাপ থেকে টাকা ইনকামের জন্য পূর্ব কোন অভিজ্ঞতা লাগবে না। আপনাকে সঠিক নিয়মে কাজ করতে হবে। এই সাইটে কাজ করার জন্য কাজ শেখার প্রয়োজন রয়েছে। 

ইউটিউব এ টাকা ইনকাম অ্যাপ লিখে চার্জ করলে চলে আসবে। গুগল প্লে স্টোর থেকে টাকা ইনকাম অ্যাপ ইন্সটল করুন। এখন আপনার সকল রিয়েল ইনফরমেশন দিয়ে একটা ফর্ম ফিলাপ করুন।  

টাকা ইনকাম অ্যাপ এ বিভিন্ন রকমের কাজ রয়েছে। ভিডিও দেখা, বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখা, গেম খেলা, কুইজ খেলা ইত্যাদি। এই কাজ অত্যন্ত সহজ। টাকা ইনকাম অ্যাপ থেকে ইনকামের টাকা বিকাশের মাধ্যমে উইথড্র দেওয়া হয়। 

অন্য পোষ্ট: ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

Daraz app

দারাজ হচ্ছে অনলাইন শপিং প্লাটফর্ম। এই প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে আপনি আপনার কাঙ্খিত প্রোডাক্ট কিনতে পারবেন। কিন্তু আপনি কি জানেন, Daraz app ব্যবহার করে টাকা ইনকাম করা যায়। দারাজ এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর মাধ্যমে এখান থেকে ইনকাম হবে। 

এজন্য আপনাকে প্রথমে দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। অ্যাকাউন্ট তৈরী করার পরে আপনার একটা রেফারেন্স লিংক অটোমেটিক তৈরি হয়ে যাবে। আপনার পছন্দমত প্রোডাক্ট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউটিউব চ্যানেলে শেয়ার করতে থাকুন। 

আপনার রেফারেল লিংকের মাধ্যমে যতগুলোতগুলো প্রোডাক্ট বিক্রি হবে। তার সবগুলো টাকা আপনার একাউন্টে চলে আসবে। সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা উত্তোলন করা যাবে। অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম সম্পর্কে আরো জানতে দারাজ অফিশিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ

Foodpanda app

খাবার ডেলিভারি করার অন্যতম প্রতিষ্ঠান ফুড পান্ডা। ফুডপাণ্ডার অনলাইন ডেলিভারি প্রধান প্রতিষ্ঠান। ফুডপান্ডা অ্যাপের মাধ্যমে ইনকাম করা যায়। এজন্য আপনাকে ফুডপান্ডা অ্যাপ্লিকেশন করতে হবে। 

ফুডপান্ডা অ্যাপ ইনস্টল হওয়ার পর একটা সুন্দর অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। এখন তৈরি হওয়ার পর আপনাকে খাবার ডেলিভারির কাজ করতে হবে। আপনি যত বেশি খাবার ডেলিভারির কাজ করবেন আপনার ইনকাম হবে বেশি। 

 টাকা ইনকাম করার অ্যাপ্স দিয়ে কি ক্যারিয়ার গড়া সম্ভম? 

একটু থামুন, আপনিতো কিভাবে এ্যাপস দিয়ে টাকা ইনকাম করতে চাচ্ছেন কিন্তু দিনশেষে আপনারতো একটা ক্যারিয়ার দরকার যা দিয়ে আপনি সবসময় টাকা আয় করতে পারবেন।এখন এই অ্যাপস গুলা দিয়ে কি আপনার একটা ভালো ফিউচার করা যাবে? 

সে উত্তরে হ্যা ও আসবে আবার না ও। যদি বলে হ্যা কেনো? তাহলে উত্তরটা হবে- আপনি যদি ইনকাম করার অ্যাপস গুলা নিজে তৈরী করেন অথবা নিজে ঐ অ্যাপসের মালিক হন তাহলে অনেক মানুষ আপনার অ্যাপসা ব্যবহার করবে।

এবং সেখান থেকে আপনি একটা হিউজ পরিমাণ টাকা পাবেন। এতো টাকা যে আপনি টাকা খেয়ে মোটা হতে পারবেন! একটু মজা করলাম। হ্যা নিজে অ্যাপস বানানো শিখলে আপনি নিজেকে অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট হিসেবে পরিচয় দিতে পারবেন এবং যে কোনো মার্কেটপ্লেস ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলো করতে পারবেন।

আর যদি বলেন না কেনো? তাহলেও শুনুন কারনটা। তা হলো- আপনি এই অ্যাপস ভিডিও দেখে কয় টাকা ইনকাম করবেন? মাসে ১০ বেশি গেলে ২০ হাজার টাকা? এতোও সম্ভব না প্রায়ক্ষেত্র।  এভাবে কতোদিন চলবেন? এভাবে একটা পরিবার চলবে নাহ, একটা সংসার চলবে নাহ।

এটা দিয়ে আপনার হাত খরচটা হবে আর অবসর সময়টা কাজে লাগিয়ে এখান থেকে আপনি আলাদা একটা টাকা আয় করে নিতে পারবেন। এটাকে আপনি এক্সট্রা ইনকাম সোর্স হিসেবে রাখবেন। এতে আপনার উপকার হবে, কখনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে নাহ।

প্রশ্নঃঅ্যাপস দিয়ে ইনকাম করা হালাল নাকি হারাম? 

উত্তরঃ আপনি যদি এমন কোনো অ্যাপস দিয়ে ইনকাম না করেন, যেগুলো দিয়ে হারাম কোনো কাজ করানো হয়,যেমন- গান বাজনা, খারাপ এডস ইত্যাদি শরীয়ত নিষিদ্ধ কাজগুলো করলে হারাম হবে।

প্রশ্নঃ অ্যাপস দিয়ে কি সত্যি ইনকাম করা যায়? 

উত্তরঃ হ্যা,এই ডিজিটাল যুগে অ্যাপস দিয়ে সত্যি সত্যি ইনকাম করা যায়৷ তবে আপনাকে পরিশ্রম এবং ধৈর্যের সাথে কাজ করতে হবে। 

প্রশ্নঃ অ্যাপসের মাধ্যমে আয় করা টাকা উঠানো যায়? 

উত্তরঃ অবশ্যই যায় তবে অনেক সময় দেখা যায় অনেক খারাপ অ্যাপসগুলা থেকে আপনাকে পেমেন্ট দিবে নাহ। তারা আপনাকে দিয়ে শুধু শুধুই কাজ করাবে তার বিনিময়ে আপনি টাকা পাবেন নাহ। কিন্তু প্রায় অ্যাপস থেকেই টাকা বা মোবাইল রিসার্চ করে দেয়।

প্রশ্নঃ অ্যাপসের মাধ্যমে মাসে কতো টাকা আয় করা যায়?

উত্তরঃ এটা বলা মুশকিল।  আপনি আসলে কোন অ্যাপসগুলাতে কাজ করছেন,ঐ অ্যাপসগুলা আপনাকে কি পরিমাণ টাকা দিচ্ছে সে হিসেব করে বলা যাবে কতো টাকা আয় করতে পারবেন। তবে বেশির ভাগ সময় ই মাসে ৩-৪ অথবা ৭-৮ বা ১০,১৫ হাজার টাকাও ইনকাম করা যায়।  

উপসংহার

আশা করি,টাকা ইনকাম করার অ্যাপ বাংলাদেশ নিয়ে আজকের আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়েছেন। আমরা সবসময় চেষ্টা করি আপনাদের সামনে সঠিক ও সত্য তথ্য তুলে ধরার। আর অনলাইনে টাকা ইনকাম করার অনেক উপায় জানতে নিচের লেখাগুলো পরুনঃ

সঠিক ও সত্য তথ্য খুঁজতে আমাদের অনেক পরিশ্রম করতে হয়। এজন্য আপনাদের উচিত আর্টিকেল পড়ে একটি কমেন্ট করার। 

আজকের টাকা ইনকাম করার অ্যাপ সবগুলো অ্যাপ পেমেন্ট করে থাকে। পেমেন্ট নিয়ে কোন চিন্তা করবেন না। এছাড়াও উপরের সবগুলো নিয়ে ইউটিউবে আরো ঘাটাঘাটি করতে পারেন। এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ। 

আরো জানুনঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published.