শা’বান মাসের ফজিলত,বরকত ও নামাজের নিয়ত। আমল

 শা’বান মাসের ফজিল্ত,বরকত ও নামাজের নিয়ত

শাবান মাসের নামাজ ফজিলত বরকত


শা’বান মাস –  শা’বান মাসের প্রথম তারিখের রাতে অর্থাৎ যে সন্ধ্যায় চাঁদ উঠে ঐ রাত্রিতে বার রাকাত নফল নামাজ পড়িবে। প্রত্যেক রাকাতে সূরা ইখলাছ পনরো বার করিয়া পড়িবে। এই রাতের যে কোন সময় এই নামাজ পড়া যায়। এই নামাজ পড়িলে বেশুমার ছওয়াব পাওয়া যায়।


শাবান মাসকে বলা হয়ে থাকে রমজানের শেষ প্রস্ততির মাস কারন শাবান মাসের পরের মাসই রমজান মাস । তাই এ মাসে আমরা রমজানের জন্য ভাল ভাবে নিজেকে প্রস্ততি করতে পারি। যাতে রমজানে আমরা ভালোভাবে আমল করতে পারি।


শাবান মাসের ফজিলত


শাবান মাসের ফজিলত সম্পর্কে শা’বান মাসের প্রত্যেক জুমার রাতে চার রাকাত নফল নামাজ পড়িবে। প্রত্যেক রাকাতে সূরা ইখলাছ ত্রিশবার পড়িবে। এই নামাজ পড়িলে এক হজ্ব ও ওমরার ছওয়াব পাইবে।



শাবান মাসের ফজিলত যে কোন রাতে আট রাকাত নফল নামাজ পড়িতে পারা যায়। এই নামাজ এক সালামে পড়িতে হয়। এই নামাজের প্রত্যেক রাকাতে সূরা ইখলাছ এগারবার পড়িবে।


এই নামাজের ছওয়াব হযরত ফাতেমা রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আন্হার রূহে পাকের উপর বখ্শীশ্ করিবে। হযরত ফাতেমা রাদিয়াল্লাহ তায়ালা আন্হা বলিয়াছেন, যে ব্যক্তি এই নামাজ উক্ত নিয়মে পড়িয়া আমার উপর উহার ছওয়াব বখ্শীশ্ করিবে, আমি তাহার জন্য শাফায়াত না করিয়া কখনও বেহেশতে এক পা ও দিব না।



আরো পড়ুন তাহাজ্জুত নামাজের নিয়ত ও নিয়ম



এই নামাজ শা’বান মাসের প্রথম ভাগে পড়িলে খুবই উত্তম হইবে। এই নামাজ পড়িবার নিয়ম এই যে, ২য়, ৪র্থ এবং ৬ষ্ঠ রাকাতের পর বসিয়া শুধু তাশাহুদ (আত্তাহিয়্যাতু) পড়িয়া অষ্টম রাকাতে তাশাহুদ, দরূদ শরীফ এবং দোয়া মাছুরা পড়িয়া নামাজ শেষ করিবে।



শাবান মাসের নামজের নিয়ত

হযরত আবুল কাসেম ছাফ্ফার রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আন্হু এই নামাজ বর্ণনা করিয়াছেন। এই নামাজের নিয়ত পরবর্তী পৃষ্ঠায় দেওয়া গেল:শাবান মাসের নামজের নিয়ত


نويت ان اصلى الله تعالى ثمان ركعات صلوة النفل متوجها الى جهة الكعبة الشريفة الله اكبره


শাবান মাসের নামজের নিয়তের বাঃ উঃ— নাওয়াইতু আন্ উছাল্লিয়া লিল্লাহে তায়ালা ছামানা রাকয়াতে ছালাতিন্ নাফুলে মোতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কা’বাতিশ শারীফাতে আল্লাহু আকবর।



tags:আমল,


kazi nazruler songit:





Leave a Comment

Your email address will not be published.